lifocyte.com

টিউমার চিকিৎসায় হোমিওপ্যাথির সাফল্য (বিনা অপারেশনে )

টিউমার 

টিউমার কি ,কেন এবং  কিভাবে হয় ? এর প্রকারভেদ সম্পর্কে আমার অন্য একটি আর্টিকেলে বিস্তারি লিখেছি । আজকের আলচ্য বিষয় হোমিও মতে টিউমারের চিকিৎসা । আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে ও বিভিন্ন  হোমিও বই এবং রেপার্টরি থেকে  সংগৃহীত কিছু তথ্য উপস্থাপন করছি । হোমিওতে অপারেশন ছাড়াই অনেক টিউমারের সফল চিকিৎসা হয়ে থাকে । তবে শর্ত থাকে যে টিউমারটি যে অক্ষত থাকে । পুর্বে কেটে ফেলা , সিরিঞ্জ দিয়ে রস বের করে নেয়া হলে এর চিকিৎসায় সফলার নিশ্চয়তা কম ।

টিউমার চিকিৎসা নিম্নোক্ত মেডিসিন গুলোর বেশি প্রয়োগ হয়ে থাকে

Baryta Carb, Baryta Iod, Baryta Mur, Calcarea Carb,Conium, Calcarea Phos, Calcarea Fluor, Calcarea Iod, Ruta, Phytolacca, Silicea, Thuja,ইত্যাদি । লক্ষণানুসারে অন্য যেকোনো হোমিও ঔষধ হতে পারে ।কেননা হোমিও চিকিৎসা লক্ষণের উপর ,রোগের উপর নায় ।

সারা শরীরে টিউমার

প্রায় ৫৫ বছরে একরোগীনি আসল তার শরীরের প্রায় সকল স্থানে টিউমার । হাতের তালু , পায়ের পাতাতেও গোটা গোটা হয়ে গেছে । ডান কাধের গ্লান্ডগুলো পাথরের ন্যায় শক্ত হয়ে গেছে । রোগি পর্যবেক্ষণ করে দেখার পর বিভিন্ন প্রশ্নের পর জানলাম ফ্যামিলতে মালা খালার এই সমস্যা ছিল একজন ক্যান্সার হয়ে মারা গেছেন ।  তার শাররীক ও মানসিক অবস্থা লিপিবদ্ধ করার পর থাকে Thuja -10M একডোজ দেই । সাথে শরীরের পরিপোষনের  জন্য বায়োকেমিক ক্যাল্কেরিয়া ফস ও ক্যাকেরিয়া ফ্লোর খাইতে দেই । ১৫ দিন পরে রোগি আসল তার হাতের তালুও ও পায়ের টিউমার গুল নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে । তবে শরীরের টিউমার গুলো আছে বূঝা যাচ্ছে ।

আবার থুজা দ্বিতীয় মাত্রা দিলাম এবং বায়কেমিক সহ । ১৫ দিন পরে তার শরীরের  শব টিউমার নির্মূল হয়ে গেল । কিন্তু গলার গ্লান্ড গুল শক্ত ও গোটা গোটা রয়ে গেল । এবার তাকে ব্যারাটা কার্ব ( তার বুদ্ধির খর্বতা আছে) ১এম দুই মাত্রা দিলে গ্লান্ডগুলো প্রায় ৮০% নির্মূল হয়ে গেছে । উল্লেখ্য পাথরের ন্যায় শক্ত টিউমারের জন্য তাকে ক্যাল্কেরিয়া ফ্লোর ১২এক্স নিয়মিত দিয়েছিলাম ।

আমার বোনের পিঠের একটি টিউমারের চিকিৎসায় থুজা ১০এম একমাত্রাতেই সেরে গেছে ।রোগটি একবছর পর পুনরায় ফিরে আসে এবার তাকে থুজা আর ডোজ দেয়াতেই নির্মুল হয়ে গেল ।ফিরে আসার কারণ হিসেবে আমি মনে করি রোগী মাথাব্যাথা হলেই প্যারাসিটামল গ্রুপের মেডিসিন খুব সেবন করে । হয়তো এই মেডিসিন তাঁর ক্রিয়া নষ্ট করে ফেলে বা পূর্ণ ক্রিয়া প্রকাশ করতে দেয় না । এজন্য শুধু হোমিও ঔষধকে দায়ী করলেই চলবে না । এজন্য  অন্যান্য চিকিৎসা বন্ধ রেখে হোমীওপ্যাথিক চিকিৎসা নিন ।

হাতের টিউমারঃ

কব্জির টিউমারের সম্পর্কে প্রায় সকলে অবগত।  সাধারণত শক্ত টিউমারে ক্যাল্কেরিয়া ফ্লোর লাগলেও  হাতের কব্জিতে ক্যাল্কেরিয়া ফস চমৎকার ফল দেখায়  ।যদি কাজ না হয় তবে রুটা প্রয়গ করলে অনেকের টিউমার সম্পূর্ণ নির্মুল হয়ে যায় ।

  • হাতের কব্জির টিউমারঃ Ruta, Calcarea Phos.
  • আঙ্গুলে টিউমারঃ Calcarea Fluor, Thuja.
  • বগলের টিউমারঃ Carbo Ani, Thuja

জরায়ু টিউমারঃ

এই সমস্যা এখন অনেক মেয়েদের মাঝে পাওয়া যাচ্ছে । এলোপ্যাথিক চিকিৎসায় অপারেশ একমাত্র সমাধান । কিন্তু জরায়ু অপারেশনের পরে বেশির ভাগ মেয়েই মা হওয়া  থেকে বঞ্চিত রয়ে যাচ্ছে , অপারেশরে পুর্বে কিছুদিন অভিজ্ঞ হোমিও চিকিৎসকের নিকট চিকিৎসা নেয়া উচিৎ । অপারেশন সর্বশেষ সমাধান বেঁচে থাকার শেষ চেস্টা । কিন্তু অনেকেই শুরুতেই অপারেশন করে ক্ষত বিক্ষত হয়ে অতপর আমাদের স্মরণাপন্ন হয়ে থাকেন ।অপারেশনের পরে সাধারণত হোমিও ঔষধ কাজ করে না বললেই চলে । তবুও চেস্টা করে থাকি এওসময় সাইলেসিয়া একমাত্র সম্বল ।

একটি মেয়ে দশম শ্রেনিতে পড়ত এপেন্ডিক্স অপারেশনের সময় ধরা পরে তার ওভেরিতে টিউমার আছে । তবে অবিবাহীত বলে অপারেশন করে নি । সেটি প্রায়শই বেদনা করত । আমার নিকট আসায় আমি তাকে থুজা -১ এম কয়েক মাত্রা দিয়ে সাথে  অরাম মিউর ন্যাট -3X   প্রতিদিন তিনটা করে ট্যাবলেট খাইতে দেই । ঔষধ সেবন কালীন তার গুপ্তাঙ্গের আশে পাশে কয়েকবার কয়েকটি ফোড়া উঠেছিল। তিন মাস পর তাঁর অভিযোগ এখোনো নাকি বেদনা করে আমি মানসিক শক্তি বাড়াতে বলেছিলাম তোমার টিউমার ভালো হয়ে গেছে ওটা মনের ধারণা মাত্র । পারলে টেস্ট করে দেখ । হ্যা কিছুদিন পরে টেস্ট করে জানালো তার ওভেরিতে টিউমার নাই । অর্থাৎ সে সম্পূর্ণ সুস্থ ।

  • ডিম্বকোষে/ওভারিতে টিউমারঃ Thuja, Calcarea Fluor.
  • গর্ভভ্রমে টিউমারঃ Natrum Carb, Thuja
  • জরায়ুর টিউমারঃ Arum Mur Nat., Calcarea Iod, Conium, Thuja
মুখ গহ্ববর ও দাঁতের গোরায় টিউমারঃ

অনেকেই হেকলা লাভা বলে থাকেন। আসলে আমার একরোগিনী থুজা ১০ এম একমাত্রা ও বায়কেমিক ক্যাল্কেরিয়া ফস ৬এক্স ও কাল্কেরিয়া ফ্লোর ১২এক্স দিয়ে সম্পূর্ণ সুস্থ । অথচ এলোপ্যাথ চিকিৎসক কতৃক  সিরিঞ্জ দিয়ে তার মাড়ি থেকে রস বের করে নেয়া হয়েছিল এবং অপারেশনের পরামর্শ দিয়েছিল।মাড়ি বা দাঁতের চিকিৎসায় অনেক সময় মার্কসল অতুলনীয় কার্য প্রদর্শন করে থাকে ।

মুখে ও দাঁতে ও অন্যান্য স্থানের ঔষধঃ

  • মুখের উপর টিউমারঃ Calcarea Fluor, Thuja.
  • ঠোটের টিউমারঃ Thuja, Silicea, Calcarea Phos.
  • মুখের ভিতর টিউমারঃ Arum Mur, Baryta Carb, Thuja.
  • গলায় টিউমারঃ Baryta Carb, Thuja.
  • জিহ্বার টিউমারঃ Thuja, Arum Mur, Baryta Carb.
  • স্বরযন্ত্রের টিউমারঃ Thuja

স্থানভেদে টিউমারের হোমিও ঔষধ

শরীরের বিভিন্ন স্হানের টিউমারের জন্য প্রয়োজনীয় কিছু ঔষধের নাম দেয়া হলো ।এগুলো ঔষধ  নির্বাচনের সহায়ক মাত্র । স্থান বিশেষ দেখে ঔষধ দিলেই টিউমার ভালো হয়ে যাবে তা না । দেখতে হবে রোগী  এগুলর মধ্যে কোন ঔষধের অধিক উপযুক্ত ।

আমার মতে যেকোনো টিউমারের চিকিৎসা দেয়ার শুরুতে একমাত্রা থুজা অক্সিডেন্টাল দেওয়া উচিৎ তাতে উপযুক্ত ঔষধ নির্বাচনের পথ বেরিয়ে আসে ।  থুজা খওয়া কালীন কাঁচা  পিঁয়াজ একদম নিষিদ্ধ কিন্তু বায়কেমিক ঔষধের সাথে থুজার কোনো সংঘর্ষ পরিলক্ষিত হয় নি ।কেননা থুজা এন্টি-সাইকোটিক  হিসেবে একটি গুরুত্বপূর্ণ ঔষধ ।

রেপার্টরিতে আরও অনেকে ঔষধ নির্দিষ্ট স্থান বিশেষে ঔষধের তালিকা দেয়া আছে প্রয়োজনে দেখুন ।

  • মাথায় টিউমারঃ Calcarea Carb, Calcarea Fluor, Thuja, Baryta Carb.
  • কপালে টিউমারঃ Conium, Calcarea Fluor.
  • কাঁধে বা পিঠে টিউমারঃ Conium, Baryta Carb
  • পেটে টিউমারঃ Calcarea Iod, Thuja.
  • .নাকে টিউমারঃ Thuja কানে টিউমারঃ Calcarea Carb, Thuja.
  • চোখের পাতায় টিউমারঃ Calcarea Fluor, Thuja. Staphysagria
  • অস্হির/হাড়ের টিউমারঃ Calcarea Phos, Calcarea Fluor, Silicea.
  • ব্রেন টিউমারঃ Sulpher, Acid Hydro, Tuber Bovi, Natrum Mur.
  • ফুসফুসে টিউমারঃ Thuja, Phosphorus.
  • রক্তবহা নাড়ির টিউমারঃ Calcarea Fluor.Thuja Q and Phytolacca Q বাহ্য প্রয়োগ করা যায়।
  • শক্ত টিউমারে Conium, Ruta, Calcarea Fluor, Calcarea Phos. Carbo Ani.
  • নরম টিউমারে Calcarea Carb, Thuja, Baryta Carb ভাল।
  • স্তনে টিউমারঃ Phytolacca, Conium, Carbo Ani, Calcarea Fluor.
  • মুত্র পথে টিউমারঃ Thuja, Eucaliptus.
  • নবজাত শিশুর টিউমারঃ Baryta Carb.
  • আঘাতের কারনে টিউমারঃ Conium, Ruta.
  • হাটুতে টিউমারঃ Calcarea Floor, Calcarea Phos.
  • উরুর মধ্যে বেদনাযুক্ত টিউমারঃ Conium
  • বুকে টিউমারঃThyroidinum.
  • রক্তময় টিউমারঃ Calcarea Floor.

পরামর্শঃ

টিউমার একদিনে জন্মে না , নানা কারণে বিভিন্ন সমস্যা সন্নিবেশিত হয়ে কোষ বিভাজনে ত্রুটি থেকে টিউমার সৃষ্টি হয়ে থাকে । তাই তা নির্মূলে ব্যাস্ত হলে চলবে না । টিউমারে বাহ্যিক ভাবে চাপ দেয়া , কেটেফেলে , রস বের করা , টিপে দেখা যাবে না । হোমিওঔষধ সেবন কালে কিছু পথ্য- অপথ্য মেলে চলুন ,ধৈর্য্য ধরে চিকিৎসা করতে হবে ।আমাদের সমস্যা হচ্ছে দ্রুত ভালো হতে চাই এজন্য প্রতিনিয়ত চিকিৎসক পরিবর্তন করতে থাকি । এভাবে বছরের পর বছর চিকিৎসা করেও তেমন কোনো ফল হয় না ।অথচ একটু ধৈর্য্য ধরে কিছু দিন একজন চিকিৎসকের নিকট চিকিৎসা করলে আশা করা যায় টিউমার নির্মূল হয়ে যাবে ।

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *