lifocyte.com

ব্যর্থতা

ব্যর্থতা কে ভুলে থেকে সামনে এগিয়ে যাওয়া এবং জীবনে সফল হওয়ার ৫টি টিপস

ব্যর্থতা কী?

একটা শিশু হাটা শিখতে বার বার ওঠে আবার পড়ে যায় আবার ওঠে। একদিন হাটা শেখে। তার এই পড়ে যাওয়াটাকে কেউ ব্যর্থতা বলে না। এটাকে বলে চেষ্টা বা সাধনা।সে দেহের ভারসাম্য আনতে নতুন নতুন কৌশল অবলম্বন করতে করতে এখন দিব্যি দৌড়াইতে পারে।সে যতবার পড়ে যায় ততোবার উঠে দাঁড়ানোর নতুন কৌশল আবিষ্কার করে।অতএব ব্যর্থতা বলে কিছু নেই, সব অভিজ্ঞতা।

এর পরেও স্বীকার করতে হয় ব্যর্থতা নামক একটা ভুত আছে। যা অনেকের মন-মগজে চেপে বসে থাকে।
এই ভুতকে কাজে লাগিয়ে অনেক অসাধ্য সাধন করা যায়, যেমন আলাউদ্দিনের সেই যাদুর চেরাগ ও দৈত্য ।
এবার আসুন কিভাবে ব্যর্থতাকে জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করে জীবন নামের রকেটে গতি বাড়িয়ে চান্দের দেশে যাওয়া যায়।

১।উদার হয়ে যাও সফলতা নিশ্চিত

একটা হয়নি অন্য একটা হবে। যা চেয়েছি তা পায়নি। তাতে কি, এর থেকেও ভালোকিছু পাওয়ার সুযোগ পেলাম।

স্বল্প প্রাপ্তির আনন্দের চেয়ে ,হারানোর অভিজ্ঞতা অনেক  উত্তম। অনেক সময় সামান্য প্রাপ্তি বৃহৎ প্রাপ্তির প্রতিবন্ধক হয়ে যায়। জীবনে কিছু হারাতে হয় বা ত্যাগ করতে হয়। নইলে জীবনে সংকীর্ণতা এসে যায়। অবশ্য এটা স্বনিয়ন্ত্রিত। তুমি যত পার্ফেক্ট হও না কেন, কিছু না কিছু হারাতেই হবে। কেউ বা কোন স্বপ্ন জীবন থেকে হারিয়ে গেলে যদি তা উদার চিত্তে মেনে নিতে পার ; তবে তুমি সফলাতার এক ধাপ এগিয়ে গেলে ।

২।সব স্বপ্ন পূর্ণতা পায় না তাই কিছু স্বপ্ন ভুলে যেতে হয়

চাইলে সব কিছু পাওয়া যায় না। রাতে ঘুমের ঘোরে আমরা অনেক মনোমুগ্ধকর স্বপ্ন দেখি। ঘুম ভাঙ্গার পর নিশ্চিয় তা নিয়ে অতটা কষ্ট পাইনা। এ জীবন ঠিক নিশার স্বপন।এখানে সব স্বপ্ন পূর্ণতা পায় না , কিছু স্বপ্ন স্বপ্নই রয়ে যায়। জীবনের হারিয়ে যাওয়া মুহুর্তকে আর হারানো বাসনাকে স্বপ্নঘোর জ্ঞান কর।আজকের দিনটাকে নতুন দিন মনে করে নতুন স্বপ্ন দেখতে থাক ।যে হারিয়ে যায় তাকে খুঁজতে পার কিন্তু যে স্বেচ্ছায় চলে যায় তার পিছনে লেগে থাকাটাই ব্যর্থতা।তাই কিছু স্বপ্ন ভুলে যাও না পারলে ভুলে থাকার অভিনয় কর ।  জীবনে চ্যালেঞ্জ নিয়ে আস এর থেকে ভাল পাওয়ার স্বপ্ন দেখ  ।

 ৩।প্রগতিশীল হয়ে যাও উন্নতির শিখরে পৌছুবে

না পাওয়াকে ব্যর্থতা না বলে উন্নতির সিঁড়ি বা  চেঞ্জ বা রিকভার অফসন বলা যায়।গণিতে Constant বা ধ্রুবক শব্দটি থাকলেও প্রকৃত পক্ষে সব কিছুই variable বা চলক।যেকোনো সিদ্ধান্ত চেঞ্জ হতেই পারে, প্রয়োজনে চেঞ্জ করা উচিৎ। এটাই প্রগতিশীলতা, এতেই উন্নয়ন। প্রগতিশিলরা থেমে থাকে না , তাদের মতে মত  না হলে তারা একলা চলতে সক্ষম। হারিয়ে যাওয় আর পালিয়া যাওয়া  এক নয় ।চুপ থাকা ,লুকিয়ে থাকা আর পালিয়ে যাওয়া সমান কথা। যে পিছন থেকে টেনে ধরে তার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাও ।

 ৪।তাকে খুঁজতে  থাকা যে তোমাকে চায়

তোমার যেমন চাওয়ার স্বাধিনতা আছে তেমনি অন্যেরও। তুমি বা U পেতে চাও A কে; A চায় B কে, B পেতে চায় C কে। এখানে তোমার তো কোনো হাত নেই, তবে কেনো হতাশ হচ্ছো? জেনেরাখ সব কিছুই পূর্বনির্ধারিত  এবং একথা মানতে শেখ।

যে চলে যায় সে তোমার নয়,অতএব তাকে গুডবাই জানাও।তুমি যাকে ভালবাস সে তোমাকে  আঘাত করবে ।সেই তোমাকে সুখি করবে  যে  তোমাক  ভালবাসে । এবার কে তোমাকে চায়, তাকে খুঁজতে থাক।প্রাপ্তির জন্য অস্থির হইও না, যোগ্যতা অর্জন কর। যোগ্যতার পিছনে ছুটতে থাক ,সম্ভবনা তোমার হাতে এসে ধরা দিবে ।

 ৫।বিরক্ত না করে চুপ থাক কেননা সে তোমার হলে ফিরে আসবে

ভাঙ্গা কাচের টুকরা কোনো কাজে আসে না। ভেঙ্গে যাওয়া মন কাচের টুকরোর ন্যায়। মানুষের মন জয় করা খুব সহজ কাজ, তার থেকেও বড় সহজ মন ভেঙ্গে ফেলা। কিন্তু সবচাইতে বড় কঠিন ভাগ্নহৃদয় কে জোড়া লাগান।টুকরো কাচ কে রিসাইক্লিং করা যায় কিন্তু মানুষের হৃদয় কে নয়।সে যদি তোমাকে চাইতো তবে সে তোমার ডাকে ফিরে তাকাত। তার ফিরে না তাকানোই প্রকাশ করে, সে অন্য কারো প্রত্যাশী।এর মানে তুমি অযোগ্য , তা নয় । সে তোমার উপযুক্ত নয় তাই সে তার উপযুক্তের সন্ধানে ব্যাস্ত ।  তাকে বিরক্ত না করে চুপ থাক।

সমস্যাঃ  সব বুঝি কিন্তু  মন মানে না । এখন উপায় কি? এক বাক্যে উত্তর তিক্ত হলেও গিলে ফেলবে ।

তার যত  দোষ আছে সেগুলে খুঁজে বের কর ,আর নিজের যোগ্যতা দিয়ে তাকে পরিমাপ করে প্রমাণ যে, কর তুমি উত্তম ; সেই তোমার উপযুক্ত নয় ।

2 thoughts on “ব্যর্থতা কে ভুলে থেকে সামনে এগিয়ে যাওয়া এবং জীবনে সফল হওয়ার ৫টি টিপস”

  1. Pingback: ক্রনিক লক্ষণ - হোমিওপ্যাথিক  কোন ঔষধের ক্রনিক পর্যায়ে কি ঔষধ প্রযোজ্য - lifocyte.com

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *